বিদেশে করোনায় ৮৬ বাংলাদেশির মৃত্যু

|

করোনাভাইরাসের সংক্রমণে গত ২৪ ঘণ্টায় যুক্তরাষ্ট্রে আরও ১৮ জন বাংলাদেশি মারা গেছেন। এ নিয়ে দেশটিতে অন্তত ৫৬ জন বাংলাদেশি মারা গেছেন। আর যুক্তরাজ্যে নতুন করে ৮ জন বাংলাদেশির মৃত্যুর ফলে সেখানে বাংলাদেশির মৃত্যুর সংখ্যা হলো ১৯।

বৃহস্পতিবার প্রবাসী বাংলাদেশি ও বাংলাদেশি কূটনীতিকদের কাছে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, এখনও পর্যন্ত পাঁচটি দেশে কমপক্ষে পাঁচজন বাংলাদেশী মারা গেছেন। তবে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং যুক্তরাজ্যের করোনভাইরাসে মারা যাওয়া বেশিরভাগ বাংলাদেশী নাগরিক দুটি দেশের নাগরিকত্ব পেয়েছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্রে ৫৬ ও যুক্তরাজ্যে ১৯ জনের পাশাপাশি সৌদি আরবে ৩ জন, ইতালি এবং কাতারে ২ জন করে এবং স্পেন, সুইডেন, লিবিয়া ও গাম্বিয়ায় একজন করে বাংলাদেশি মারা গেছেন। Dhakaাকার তাবলীগ জামাত সূত্র জানিয়েছে যে গাম্বিয়ায় যে ব্যক্তি মারা গেছে সে আফ্রিকার দেশ তাবলিগ চিল্লায় অংশ নিয়েছিল।

নিউইয়র্কের পরিস্থিতি

আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে, টেস্টিং কিটের অভাবে লোকেরা ঘরে বসে সংক্রমণ ছড়াচ্ছে। করোনভাইরাসযুক্ত অগণিত মানুষ পরীক্ষায় ব্যর্থ হওয়ার পরে দিনের পর দিন ঘরে বসে ছিলেন। ফলস্বরূপ, সংক্রমণটি পুরো সম্প্রদায়ের মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে।

এলমহার্স্ট হাসপাতালে নিজের কাজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে ফেরদৌস খন্দকার বলেন, সেখানে এখন যত রোগী ভর্তি আছে, তার ৯৫ শতাংশই হচ্ছে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত। প্রচুর রোগী মারা যাচ্ছে সেখানে। হাসপাতালটির চারপাশে প্রায় ১০ মাইল ব্যাসার্ধের এলাকার অধিকাংশই অত্যন্ত ঘনবসতিপূর্ণ। বেশিরভাগ অভিবাসী সম্প্রদায়। তাদের জীবনধারা বা চলাচল স্বাস্থ্যকর নয়।

নানা সূত্র থেকে জানা গেছে, বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এ পর্যন্ত কয়েক শ বাংলাদেশি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে অন্তত ২০০, ইতালিতে ৪০, স্পেনে ২৩, কানাডা ও ফ্রান্সে ২০ জন করে ও জার্মানিতে ১০ জন।










Leave a reply